কেন্দুয়ায় পিতা-মাতাকে মারধরের অপরাধে পুত্রের ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড

কেন্দুয়ায় পিতা-মাতাকে মারধরের অপরাধে পুত্রের ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোণা ঃ পিতা-মাতাকে অশ্রদ্ধা, অসন্মান ও মারধরের অভিযোগে শেখ গাজ্জালী হাসান (৩২) নামক এক যুবককে ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (২২ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার বলাই শিমুল ইউনিয়নের উজিয়ালপুর গ্রামে। শেখ গাজ্জালী উজিয়ালপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা বদর উদ্দিনের ছেলে।
      কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান রুহুল ইসলাম জানান, উজিয়াপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা বদর উদ্দিনের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গ্রামে গিয়ে তদন্তকালে জানা যায়, শেখ গাজ্জালী টাকা পয়সা ও অন্যান্য তুচ্ছ কারনে পিতা-মাতার প্রতি প্রায়শই অশ্রদ্ধা ও অশালীন আচরণ করে আসছে। এছাড়াও সে বাবা মাকে বিভিন্ন সময় মারধর করে। ঘটনার দিন টাকা না দেয়ায় গাজ্জালী কুড়াল নিয়ে তার মাকে মারতে দৌঁড়ানী দেয় এবং বাবাকে ছুরি নিয়ে মারতে উদ্ধত হয়। সন্তানের এমন আচরণ সইতে না পেরে মুক্তিযোদ্ধা বাবা বিষয়টি কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ওসিকে জানিয়ে প্রতিকার দাবী করেন। এরই প্রেক্ষিতে কেন্দুয়া থানা পুলিশ অভিযুক্ত যুবক গাজ্জালীকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করে। আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে সে আদালতে সকল অপরাধের কথা স্বীকার করে। বিচারক এ ন্যাক্কার জনক আচরণের জন্য পিতা-মাতার কাছে তাকে ক্ষমা চাইতে বললে সে ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, তার ফাঁসি হলেও সে ক্ষমা চাইবে না। তাকে অনেক বুঝানোর পরও ক্ষমা চাইতে রাজি না হওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক দন্ড বিধির ৩৫৫ ধারা মোতাবেক তাকে ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।
      কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রাশেদুজ্জামান জানান, শেখ গাজ্জালীকে শনিবার দুপুরে নেত্রকোণা জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।