করোনা ভাইরাসের প্রভাব নেত্রকোনা কর্মহীন হত-দরিদ্র এক শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে এগিয়ে এসেছে জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ

করোনা ভাইরাসের প্রভাব নেত্রকোনা কর্মহীন হত-দরিদ্র এক শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে এগিয়ে এসেছে জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা:  করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সরকারী বিধি নিষেধের কারণে সাধারণ মানুষ যখন ঘরে থাকতে বাধ্য হচ্ছে, ঠিক সেই সময় কাজ হীন  হত দরিদ্র নিন্ম আয়ের মানুষের দুর্ভোগ দুদর্শা লাঘবে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে এগিয়ে এসেছে নেত্রকোনা জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ।
  করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে  সরকার ২৬ মার্চ থেকে সকল সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিল্প কল কারখানা, দোকান পাট বন্ধ ঘোষনা করে সকল মানুষকে বাড়ীঘর কিংবা বাসা বাড়ীতে থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন। আর এ নির্দেশ বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি পুলিশ র‌্যাব, সেনা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছে। সব ধরণের কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সবচেয়ে বেশী বিপাকে পড়েছে নিন্ম আয়ের মানুষ বিশেষ করে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। যারা দিন এনে দিন খায় তারা কোন কাজ করতে না পারায় তাদের রোজগারের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে অত্যন্ত মানবেতর জীবন যাপন করছে।
 এই অবস্থায় নিন্ম আয়ের মানুষের দুর্ভোগ, দুর্দশা লাঘবে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে এগিয়ে এসেছে নেত্রকোনা জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ। জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক অনীক মাহবুব চৌধুরীর নেতৃত্বে জেলা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ   রবিবার দুপুরে প্রেসক্লাবের সামনে অসহায়, দুস্থ ও হত-দরিদ্র এক শত নিন্ম আয়ের পরিবারের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় চাল, ডাল, তেল, আলু, লবন, সাবান ও স্যানিটাইজার বিতরণ করেছে। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি রায়হান ফারাস বাপ্পী, সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন হাইউল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন খান, পৌর ছাত্রদলের সাবেক সিঃ যুগ্ম আহবায়ক রাশেদুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মোঃ আরিফ মিয়া, আবির হাসান হিমেল, সদর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক সাফায়েতুল ইসলাম জুয়েল, জেলা ছাত্রদল নেতা আলমগীর হোসেন সুমন, রবিউল আলম রবি, আবির হোসেন রাব্বীসহ অন্যান্য ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ।
    জেলা ছাত্রদলের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে নিম্ম আয়ের পরিবারগুলো। তারা আশা করেন, ছাত্রদলের মতো অন্যান্য রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও অন্যান্য এনজিওগুলো নিন্ম আয়ের মানুষের সাহায্য সহযোগিতায় এগিয়ে আসলে দেশের এই দুর্যোগকালীন সময়ে কর্মহীন নিম্ম আয়ের সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ, দুর্দশা অনেকটাই লাঘব হবে।