নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে করোনার লক্ষণ নিয়ে দিনমজুরের মৃত্যু : স্বাস্থ্য বিভাগের নমুনা সংগ্রহ

নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে করোনার লক্ষণ নিয়ে দিনমজুরের মৃত্যু : স্বাস্থ্য বিভাগের নমুনা সংগ্রহ

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা : নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুরী উপজেলায় বড়হাটি গ্রামে শনিবার ভোরে করোনার লক্ষণ সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে নৃপেন্দ্র দাস (৫৫) নামক এক দিন মজুরের মৃত্যু হয়েছে।
     খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ রাজিব ভূঁইয়া জানান, সকাল ১০টার দিকে স্থানীয় লোক মারফত খবর পেয়ে শ্বশ্মানঘাটে গিয়ে মৃতের শরীর হতে নমুনা সংগ্রহ করেছি। এ ব্যাপারে খালিয়াজুরী উপজেলার ভারপ্রাপ্ত টিএইচও ডাঃ মাশরুর সিয়ামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি দিন মজুরের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তাদের স্বজনদের সূত্রে জানতে পারলাম নৃপেন্দ্র ঢাকায় স্ত্রী সন্তান নিয়ে কাজ করতেন। গত ২০/২১ দিন পূর্বে বড়হাটি গ্রামের ভাতিজা সঞ্জিত দাসের বাড়িতে তিনি একা এসেছেন। স্বজনদের দাবী, তিনি শ্বাস কষ্টের রোগী ছিলেন।  গত কয়েকদিন যাবৎ তিনি জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভোগছিলেন। শনিবার ভোরে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। খবর পেয়ে আমরা মৃতের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে রেখেছি। দূর্গম এলাকা হওয়ায় এই নমুনা আমরা রবিবার সকালে নেত্রকোনা সিভিল সার্জন অফিসে পাঠাবো। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসীর মাঝে চরম উদ্বেগ উৎকণ্ঠা দেখা দেয়।
 নেত্রকোনার সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ তাজুল ইসলাম খান বলেন, নমুনা পরীক্ষার পর বুঝা যাবে তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন কি না?
 নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম বলেন, মৃতের শরীর থেকে নেয়া নমুনা ময়মনসিংহ করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণ ল্যাবে পাঠানো হবে। পরীক্ষার পর বলা যাবে তিনি করোনায় না কি অন্য কোন রোগে মারা গেছেন। রেজাল্ট আসা না পর্যন্ত আমি স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছি, সঞ্জিত দাসের বাড়ীর লোকজন যেন ঘর থেকে বের না হয় সে দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে।