কেন্দুয়ায় মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ১০ টাকা কেজি মূল্যের চাল বিক্রি চলছেই

কেন্দুয়ায় মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ১০ টাকা কেজি মূল্যের চাল বিক্রি চলছেই

 

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া প্রতিনিধি : মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ১০ কেজি মূল্যের চাল বিক্রি চলছেই। কেন্দুয়া উপজেলার ১২ নং রোয়াইলবাড়ি আমতলা ইউনিয়নের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলার হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মৃত ব্যক্তির টিপসই জাল করে ১০ টাকা কেজি মূলের চাল নিজেই উত্তোলন করে আসছেন বলে অভিযোগ ওঠেছে। একই ইউনিয়নের চাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের নামে ১০ টাকা কেজি মূল্যের চাল উত্তোলন করা হচ্ছে কয়েক মাস ধরে। প্রায় ৯ মাস আগে মারা যান চাপুর গ্রামের আব্দুল হামিদ। ডিলার হাবিবুর রহমান মৃত ব্যক্তির নাম দিয়ে চাল উত্তোলনের মাষ্টার রোলও জমা দেন গত মার্চ মাসের ৯ তারিখ। এতে আব্দুল হামিদ মাস্টার রুলে টিপ দিয়ে তার কাছ থেকে চাল উত্তোলন করেন বলে তার দাবী। খোলা বাজারের চাল মৃত ব্যক্তি কিভাবে উত্তোলন করছে, এ বিষয়টি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হওয়ার পর আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সংশ্লিষ্ট ডিলারের তদারকি কর্মকর্তা উপ সহকারি কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসালামের সঙ্গে রোববার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমিত আর সকলকে চিনিনা, তাছাড়া শোনেছি ওয়ার্ড আওয়ামীরীগের সভাপতি বাদল মিয়া ডিলারকে নির্দেশ দিয়েছেন ওই কার্ডের চাল মৃত আব্দুল হামিদকে দেয়ার জন্য। এদিকে মৃত আব্দুল হামিদের স্ত্রী শাফিয়া আক্তার জানান, তার স্বামী মারা গেছে প্রায় ৯ মাস আগে এর পর তারা কোন দিনই খোলা বাজারের ১০ টাকা কেজির চাল কিনতে আসেননি। এমনকি তার মৃত স্বামীর পরিবর্তে অন্য কারো নামে কার্ড করতেও যাননি। ওই ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আমির হামজা বলেন, ৯ মাস আগে আব্দুল হামিদ মারা গেছে। এর পর কিভাবে ডিলার হাবিবুর রহমান মৃত আব্দুল হামিদের নামে চাল উত্তোলন করছেন এ বিষয়টি তদন্ত করে দেখার দাবী জানান। এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।