থানার পেছনে সবজী ওসি রাশেদের সবজী চাষ

থানার পেছনে সবজী ওসি রাশেদের সবজী চাষ

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া, প্রতিনিধি : দেশে ১ ইঞ্চি জমিও পতিত রাখা যাবে না। করোনা পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় যাতে দেশে খাদ্য ঘাটতি দেখা না দেয়, সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকল মানুষকে এমন নির্দেশনাই দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা শতভাগ বাস্তবায়নে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান থানার পেছনে ঝোপজঙ্গল পরিষ্কার করে করেছেন বিভিন্ন প্রকারের সবজী চাষ। এই সবজী চাষ অত্যান্ত সুন্দর ও সফলতার মুখ দেখবে এমনটিই আশা করছেন তিনি। এই জঙ্গলে কোন এক সময় শিয়ালের বাসা বাড়ি ছিল। এক সময় ফেলে রাখা হয়েছিল এক শিশুর মৃতদেহ। জঙ্গল থাকায় কেউ সেখানে মাসেও একদিন যেতনা। হঠাৎ একদিন সকালে অনেক কাক পাখি উড়তে দেখে খোঁজ নিয়ে দেখা যায় থানার পেছনের জঙ্গলে ভাউন্ডারীর ভেতর একটি শিশুর লাশ পড়ে আছে। শিয়াল কুকুরে খেয়ে এই লাশটিকে ক্ষত বিক্ষত করে রেখেছে। এই জঙ্গল পরিস্কার করে নিজস্ব অর্থায়নে করা হয়েছে সবজী বাগান এবং একটি মিনি পুকুর। এখানেই বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষও করা হচ্ছে। বিভিন্ন প্রকারের সবজী চাষের ফলে থানা পুলিশের সদস্যরা যেমন বিষমুক্ত সবজী খেতে পারবে, তেমনি পারবে প্রয়োজনে বিক্রিও করতে। সবজী চাষ প্রসঙ্গে ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় থানার পেছনে ঝোপঝার পরিষ্কার করেছি যাতে এখানে নতুন করে এডিস মশার জীবানু না জন্মাতে পারে। তাছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ রয়েছে ১ইঞ্চি জমিও যাতে পতিত না থাকে। সেই জন্য প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনাকে শতভাগ মাথায় তুলে নিয়ে জঙ্গল পরিষ্কার করে করেছি বিভিন্ন সবজী চাষ ও মিনি পুকুরে মাছ চাষ করা হয়েছে। এতে আমরা সবাই বিষমুক্ত সবজী খেতে পারব। আমি আশা করব আমার দেখাদেখি অন্যরাও বাড়ির অঙ্গিনায় শাক সবজী চাষে আগ্রহী হবেন।