কলমাকান্দায় এক এতিম শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান

কলমাকান্দায় এক এতিম শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান

শেখ শামীম, স্টাফ রিপোর্টার : কাওছার আহম্মেদ চার বছর বয়সে বাবা হাবিবুর রহমানকে হারায়। এর দুই বছর পর তার মা হাফজা আক্তার পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন। এক ভাই এক বোনের মধ্যে বোন থাকে দাদার বাড়িতে। আর কাওছার থাকে নানা বাড়িতে। এখন কাওছারের বয়স ৭ বছর। পিতা-মাতা হারানো কাওছারের লেখা-পড়া থেকে শুরু করে যাবতীয় ভরন পোষনে দায়িত্ব নিয়ে মানবতার উজ্জল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন এক ইউপি চেয়ারম্যান।

কাওছারের নিকট তার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমি ছোটবেলায় বাবা মাকে হারিয়েছি। আমার  ছোট বোন তামান্না দাদা বাড়িতে থাকে।  আমি থাকি নানি বাড়িতে থেকে লেংগুরার মধ্যপাড়ার সাওতুল হেরা নুরানী হাফিজিয়া মাদ্রাসার পড়াশোনা করছি। চেয়ারম্যান চাচার কাছ থেকে পোশাক ও শিক্ষা উপকরণ পেয়ে খুবই খুশি। আমি পড়াশোনা করে যেন মানুষের মতো মানুষ হতে পারি সবাই দোয়া করবেন।

নেত্রকোণার কলমাকান্দায় লেংগুরা ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাইদুর রহমান ভূইয়ার নিজস্ব অর্থায়নে ১৬টি মাদ্রাসার এতিম ছেলে ও মেয়ে ১৩৫ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে  পোশাক ও শিক্ষা উপকরণ  বিতরণ করা হয়েছে।

 সোমবার দুপুরে উপজেলার সীমান্তবর্তী  লেংগুরা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ১৩৫ জন এতিমের মাঝে পোশাক ও শিক্ষা উপকরণ বিতরনের সময় লেংগুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সাইদুর রহমান ভূঁইয়া এতিম কাওছার আহম্মেদের দায়িত্ব নেন।

বিভিন্ন মাদ্রাসার ৭০ জন ছেলে ও ৬৫ জন মেয়ে এতিমদের মাঝে পোশাক ও শিক্ষা উপকরণ বিতরনের সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী ভুঁইয়া, লেংগুরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোশাররফ হোসেন, সাওতুল হেরা নুরানী হাফিজিয়া মাদ্রাসার সেক্রেটারী শিক্ষক মো. আতাউর রহমান, পশ্চিম জিগাতলা মাদ্রাসার সেক্রেটারী মাওলানা জামাল উদ্দিন, শিবপুর মহিলা মাদ্রাসার মোহতামিম মাওলানা মোবারক হোসেন, স্থানীয় ইউপির সদস্য মো. রফিকুল ইসলামসহ ১৬টি মাদ্রাসার শিক্ষকবৃন্দ।