নেত্রকোণায় ৩১ বিজিবি'র অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় কসমেটিক জব্দ 

নেত্রকোণায় ৩১ বিজিবি'র অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় কসমেটিক জব্দ 

নেত্রকোণা প্রথিনিধি  : বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ নেত্রকোণা ব্যাটািলয়ন (৩১ বিজিব) ভারতীয় সীমান্তবর্তী ভরতপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৭ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা মূল্যের ভারতীয় চোরাচালানী কসমেটিক জব্দ করেছে। 

নেত্রকোণা ব্যাটািলয়ন (৩১ বিজিব)'র অধিনায়ক লেঃ কর্নেল এ এস এম জাকারিয়া গণমাধ্যম কর্মীদএর কাছে প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান শনিবার দিবাগত রাত ১ টা ২০ মিনিটের দিকে দূর্গাপুর উপজেলার ভরতপুর বিওপি’র নায়েব সুবেদার মোঃ ফরিদুল ইসলাম খাঁনের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি টিম সীমান্ত টহল দিচ্ছিল। এ সময় গাজিরকোণা নামক স্থান থেকে ৩৭ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা মূল্যের ১৪ হাজার ৯ শত পিস ভারতীয় ক্লিন এন্ড ক্লিয়ার ফেস ওয়াশ জব্দ করে বিজিবি'র জোয়ানরা। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে চোরা কারবারিরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। জব্দকৃত চোরাচালানী মালামালের সিজার মূল্য ৩৭ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা মাত্র। 
জব্দকৃত কসমেটিক নেত্রকোণা জেলা কাষ্টমস অফিসে জমা করা হয়। 

তারাকান্দায় ফেইসবুক আইডির বিরুদ্ধে জিডি
তারাকান্দা প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলায় বালিখাঁ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরোদ্ধে ভয় ভীতি দেখিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা কথার ভিডিও পোস্ট করেন ফেইসবুক ব্যাবহারকারী শরৎ সেলিম ও শেখ মামুনুর রশীদ মামুন। উক্ত বিষয়টি উপজেলার ঢাকিরকান্দা গ্রামের মো: মোফাজ্জল হোসেনের নজরে আসলে (২১ আগষ্ট) শনিবার তারাকান্দা থানায় ২টি ফেইসবুক আইডির বিরুদ্ধে জিডি করেছে মোফাজ্জল হোসেন (৪৫) নামক এক ব্যাক্তি। জিডি নং-৯০৭। জানা গেছে,অজ্ঞাত ২ ব্যাক্তি উপজেলার ঢাকিরকান্দা গ্রামের মো: মোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে যায়। পরে সরকারী ঘর পাওয়ার অজুহাতে বালিখাঁ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কে ঘুষ দেয়ার বক্তব্য দিতে বলে।জিডিতে আরও উল্লেখ করে চেয়ারম্যানের নামে ঘুষ নেওয়ার কথা না বলিলে তাকে মিথ্যা মামলা জড়ানোর হুমকি দেয়। তিনি তাদের ভয়ে চেয়ারম্যানকে ঘুষ দেয়ার কথা বলিলে ভিডিও ধারণ করে। তারপর ২ ব্যাক্তি শরৎ সেলিম ও শেখ মামুনুর রশীদ মামুন নামে ফেইসবুকে পোস্ট করে। এতে চেয়ারম্যান সামাজিক ভাবে হেয় হয়। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা প্রচার করায় ইউনিয়নের জনগন ক্ষোপ প্রকাশ করেছেন। ইউপি সদস্যরা বলেন এই কতিথ নামধারী সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে একের পড় এক মিথ্যা সংবাদ করে যাচ্ছে। ১ বছর আগেও নামধারী সাংবাদিক তাদের ফেইসবুক ও ভূইপুরন (সরকার অনুমোদন হীন) অনলাইন পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে। এর পতিবাদে চেয়ারম্যান ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে জাতীয় পত্রিকার (স্থানীয়) সাংবাদিকদের নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করা হয়। ইউনিয়নের রফিকুল ইসলাম,সারোয়ারসহ একাদিক ব্যাক্তিরা বলেন আমাদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম দুদু নির্বাচিত হয়ার পড় থেকে ইউনিয়নের একাদিক রাস্তা পাকা করণ করা হয়েছে। তার আমলে ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নির্মান ও একাদিক ব্রিজ কালভার্ট নির্মান হয়েছে। আমাদের জনপ্রিয় চেয়াম্যানের নামে মিথ্যা সংবাদ (ফেইসবুকে) প্রচারে নিন্দা জানাই।