ভবন, গাড়ি ও জনবল থেকে চালু নেই পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন,কাঙ্খিত সেবা বঞ্চিত উপজেলাবাসী  

ভবন, গাড়ি ও জনবল থেকে চালু নেই পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন,কাঙ্খিত সেবা বঞ্চিত উপজেলাবাসী  

মো: আল মুনসুর, পূর্বধলা প্রতিনিধি:  নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলায় পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মাণ এর কাজ অনেক দিন আগে শেষ হলেও শুরু হচ্ছে না এর কার্যক্রম। ফায়ার সার্ভিস বিভাগ বলছে নির্মাণ কাজে কিছু ত্রুটি বিচ্যুতি থাকায় ভবন বোঝে নেওয়া হচ্ছে না। আবার গণপুর্ত বিভাগ বলছে ইতিমধ্যে ভবনের শতভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। দুই পক্ষের ঠেলাঠেলির কারনে এই স্টেশনে জনবলসহ দুটি গাড়ি দেয়া হলেও শুরু হচ্ছে না এর কার্যক্রম। এতে উপজেলাবাসীকে বহুল কাঙ্খিত ফায়ার সার্ভিসের সেবার সুফল থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে। নেত্রকোনা গণপুর্ত বিভাগ সুত্রে জানা গেছে পূর্বধলা উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মাণের জন্য ২০১৫সালের দিকে উপজেলার চৌরাস্তার পাশে ৩৩শতক জমি সরকারের নামে একোয়ার করা হয়। পরবর্তীতে ভবন নির্মাণের জন্য দরপত্র আহবান করা হলে মেসার্স মোনালিসা ও এন. এইচ এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ পায়। এর জন্য নির্মাণ বরাদ্দ দেওয়া হয় প্রায় ৩কোটি টাকা। কার্যাদেশ পাওয়ার পর ২০১৮সালের প্রথম দিকে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নির্মাণ কাজের নির্ধারিত সময় দেড় বছর অতিক্রম হলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ সম্পুর্ণ করতে না পারায় আরও কিছু সময় বৃদ্ধি করে বাকী কাজ শেষ করেন। এরই মধ্যে ভবণ নির্মাণের কাজ শেষ করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গণপুর্ত বিভাগের মাধ্যেমে ফায়ার সার্ভিস বিভাগকে ভবনটি বোঝে নেওয়ার জন্য বলেন। কিন্তু নির্মাণকৃত ভবনে ওয়াল ডেমেজ, দরজা ও ফিটিংস-এ ত্রুটি, মাটি ভরাট নেই ইত্যাদি অভিযোগ এনে ভবন বোঝে নিতে অপরাগত প্রকাশ করেন ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এন.এইচ এন্টারপ্রাইজ এর সত্বাধিকারী মো: নেজামুল হক জানান আমরা ফায়ার স্টেশন ভবন নির্মানের কাজ যথাযথভাবে শেষ করে ভবণ গ্রহনের জন্য গণপুর্ত বিভাগকে জানিয়েছি। তারা গ্রহণ করতে বিলম্ব করায় আমারও ক্ষতিগ্রহ হচ্ছি। এ বিষয়ে ভবন নির্মাণ কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা নেত্রকোনার গণপুর্ত বিভাগের সাব এসিসষ্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার মো: রোকন উদ্দিন জানান, তাদের তদারকিতে ভবন নির্মানের কাজ যথাযথভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ কিছু ক্রুটির কথা উল্লেখ করলে তাও ইতি মধ্যে ঠিকাদারের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ ইচ্ছা করলেই ভবন গ্রহণ করে কার্যক্রম শুরু করতে পারেন।
পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মাণের কাজ শেষ হওয়ার প্রেক্ষিতে এখানে কার্যক্রম শুরুর জন্য লোকবল ও ২টি গাড়িসহ অন্যান্য সরঞ্জাম বরাদ্দ দেয়া হলেও কাজ শুরু করা হচ্ছে না। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের উপ পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মো: অহিদুল ইসলামের স্বাক্ষরিত ২৯/৭/২০২১ তারিখের একটি চিঠিতে দেখা গেছে মো: আশরাফুর রহমান রাব্বী নামের এক ফায়ার ফাইটারকে সীতাকুন্ড ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন চট্টগ্রাম থেকে বদলী করে পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন, নেত্রকোনায় বদলী করা হয়েছে। নির্ভরযোগ্য সূত্রে আরও জানা গেছে পূর্বধলা স্টেশনের জন্য দেওয়া গাড়ী অন্য স্টেশনে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, নেত্রকোনা এর উপ-সহকারি পরিচালক শেখ মো: মাহবুবুল ইসলাম জানান, ভবন নির্মাণ শেষ হলেও ভবনের ওয়াল ডেমেজ, দরজা ও ফিটিংস এ ত্রুটি, মাটি ভরাট নেই ইত্যাদি বিষয়ে ত্রুটি ধরা পরায় এগুলি সামাধান করে দেওয়ার জন্য গণপুর্ত বিভাগকে বলা হয়েছে। জনবল নিয়োগ ও গাড়ির বিষয়টি প্রথমে অস্বীকার করেলেও পরে তিনি বলেন, পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এর জন্য যাদের পদায়ন করা হয়েছে তাদের অন্য স্টেশনে কাজ করানো হচ্ছে। পূর্বধলা স্টেশন চালু হলেই তাদের এখানে নিয়ে আসা হবে। পূর্বধলা স্টেশনের জন্য দেয়া দুটি গাড়িও জেলার অন্য স্টেশনগুলিতে ব্যবহৃত হচ্ছে বলে তিনি জানান।  
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, ময়মনসিংহের উপ পরিচালক মো: মজিবুর রহমান জানান, পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন ভবন নির্মানের কাজ শেষ হলেও কিছু সমস্যা থাকায় সেগুলি সমাধান কল্পে দ্রত স্টেশন চালুর ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
পূর্বধলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন জানান, পূর্বধলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন ভবন নির্মান কাজ শেষ হওয়া সত্যেও এর কার্যক্রম শুরু না হওয়ার অগ্নিকান্ড, সড়ক দুর্ঘটনাসহ যেকোন দুর্ঘটনা মোকাবেলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলাবাসী। তাই তিনি স্টেশনটি দ্রত চালুর দাবী জানান।